IOT- Internet of Things

IOT-Internet of things

IOT-Internet of things

What is IOT - Internet of Things

Internet of Things (IoT) এমন একটি পদ্ধতি যা কম্পিউটিং ডিভাইস, মেকানিক্যাল এবং ডিজিটাল মেশিন, অবজেক্ট, প্রাণী অথবা মানুষের মধ্যে সমন্বয় করে একটি অদ্বিতীয় নির্দেশক প্রদান করে যা নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ডাটা ট্র্যান্সফার করে মানুষ থেকে মানুষ ও মানুষ থেকে কম্পিউটারের মধ্যে কোন ধরনের যোগাযোগ ছাড়াই । Internet of Things (IoT) তে যে যে বিষয় বা উপাদানগুলো সরাসরি প্রয়োজন হয় সেগুলো হল – বাস্তব সম্মত পর্যালোচনা, মেশিন সম্পর্কে ধারণা, সেন্সর এবং এম্বেডেড সিস্টেম। প্রচলিত এম্বেডেড সিস্টেম, তারবিহীন সেন্সর নেটওয়ার্ক, কন্ট্রোল সিস্টেম এবং অটোমেশন ।

আইওটি কিভাবে কাজ করে
এখন প্রশ্ন হল IoT কিভাবে কাজ করে ? আমি খুব সাধারনভাবে তা আপনাদের কাছে উপস্থাপন করার চেষ্টা করব । একটি আইওটি সিস্টেমে সেন্সর ডিভাইস থাকে যা কোন প্রকার সংযোগ ছাড়াই ক্লাউড কম্পিউটিং এর মাধ্যমে যোগাযোগ করে । সেন্সর থেকে প্রাপ্ত তথ্য ক্লাউডে যাওয়ার পরে সফটওয়্যার তা গ্রহন করে সেন্সর থেকে প্রাপ্ত তথ্য প্রক্রিয়া করে । সফটওয়্যার একা একাই সিদ্ধান্ত নিতে পারে যেমন কোন সতর্কতা প্রেরন করা । এক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর কোন প্রয়োজন ছাড়াই সেন্সরগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজেদের মাঝে সামঞ্জস্য করতে পারে । তবে কোন কোন ক্ষেত্রে যদি ব্যবহারকারী কোন ইনপুট প্রদান করতে চান সেক্ষেত্রে একটি ইন্টারফেসের মাধ্যমে তা দিতে পারেন । এক্ষেত্রে ইউজার ইনপুট তারপর ক্লাউড হয়ে সফটওয়্যার সেন্সর একই রকম কাজ করতে পারে ।
Internet of Things (IoT) এর জন্য যে যে উপাদান থাকে সেগুলো হল
  • এনটিটিঃ গ্রাহক, ব্যবসা, সরকার ।
  • ফিজিক্যাল লেয়ারঃ হার্ডওয়্যার যন্ত্রাংশ যেমন সেন্সর এবং নেটওয়ার্কিং গিয়ার ।
  • নেটওয়ার্ক লেয়ারঃ ফিজিক্যাল লেয়ার থেকে তথ্য সংগ্রহ করে বিভিন্ন ডিভাইসের মাঝে প্রদান করা ।
  • অ্যাপ্লিকেশন লেয়ারঃ প্রোটোকল ও ইন্টারফেস মধ্যে সমন্বয় করে ।
  • রিমোটঃ ড্যাশবোর্ড ব্যবহার করে এনটিটি সমূহকে বিভিন্ন আইওটি ডিভাইসের সাথে সংযোগ প্রদান করে এবং তাদের নিয়ন্ত্রণ করে, যেমন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ।
  • ড্যাশবোর্ডঃ আইওটি ডিভাইসের তথ্য দেখায় এবং তাদের নিয়ন্ত্রণ করে। যেমনঃ রিমোট নিয়ন্ত্রিত ঘর ।
  • আনালাইটিক্সঃ ইহা একটি সফটওয়্যার সিস্টেম যা আইওটি ডিভাইসের তথ্য এনালাইসিস করে ।
  • ডাটা স্টোরেজঃ যেখানে তথ্য জমা থাকে ।
  • নেটওয়ার্কঃ এনটিটি সমূহকে অন্য সকল ডিভাইসের সাথে যোগাযোগের ব্যবস্থা করে ।
ICT Job Solution
Internet of Things (IoT) ভবিষ্যৎঃ বিজনেস ইনসাইডার ইন্টেলিজেন্স এর মতে আগামি ২০২৬ সালের মধ্যে সারা বিশ্বে ৬৪ বিলিয়ন আইওটি ডিভাইস ইন্সটল হবে । শুধুমাত্র আইওটি ডিভাইস কেনা, সমস্যার সমাধান ও মেরামতের জন্য কোম্পানি এবং গ্রাহকেরা ২০১৮ সাল থেকে ২০২৬ সালের মধ্যে সারা বিশ্বে ১৫ ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করবে ।

আইওটি খাতসমুহঃ
  • উৎপাদন
  • যোগাযোগ
  • প্রতিরক্ষা
  • কৃষি
  • অবকাঠামো তৈরি
  • পাইকারি ব্যবসা
  • ব্যাংক
  • তেল, গ্যাস, মাইনিং
  • ইনস্যুরেন্স
  • স্মার্ট বিল্ডিং
  • খাদ্য সরবরাহ
  • স্বাস্থ্য সুরক্ষা
  • অন্যান্য

IOT-Internet of things


যেসব প্রতিষ্ঠান Internet of Things (IoT) ব্যবহার করে
  • ইন্টেল
  • ইরিকসন
  • মাইক্রোসফট
  • এমাজন
  • গুগল
  • আইবিএম
  • সিসকো
  • ভেরিজন
  • এটি অ্যান্ড টি
  • জিই
  • ফিটবিট
  • জারমিন
  • হ্যানিওয়েল
  • ব্যাকরক
Internet of Things (IoT) প্লাটফর্মঃ
  • এমাজন ওয়েব সার্ভিস
  • মাইক্রোসফট এজুর
  • থিঙ্কওরক্স আইওটি
  • আইবিএম ওয়াটসন
  • সিসকো আইওটি ক্লাউড কানেক্ট
  • সেলসফোরস আইওটি ক্লাউড
  • ওরাকল ইনটিগ্রেটেড ক্লাউড
  • জিই প্রেডিক্স
History of Internet of Things
Internet of things এই শব্দটি খুব বেশীদিনের পুরনো নয় । এর বয়স মাত্র ২২ বছর হ্যাঁ মাত্র ২২ বছর । কিন্তু তারও অনেক আগে প্রায় ১৯৭০ সালের দিকে এই বিষয়ে ধরনা করা হয়েছিলো । তখন সংযুক্ত ইন্টারনেট বা সর্বব্যাপী কম্পিউটিং বলা হত । কিন্তু প্রথম ১৯৯৯ সালে Internet of things শব্দটি ব্যবহার করেন কেভিন এসটন যখন তিনি প্রোক্টর এন্ড গ্যাম্বল কোম্পানিতে সাপ্লাই চেইন অপটিমাইজার হিসেবে কাজ করতেন । সেই সময় ইন্টারনেট একটা নতুন যুগের সূচনা করেছে, তাই তিনি সিনিয়র ম্যানেজমেন্টের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য তার একটি প্রেজেন্টেশনে এই শব্দটি ব্যবহার করেন । কিন্তু তার পরেও আর ১০ বছর কেটে গেছে কিন্তু Internet of things সে রকম জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারে নি । ২০১০ সালের দিকে এইটা নিয়ে ব্যাপক আলোড়ন তৈরি হয় । যখন গুগল ষ্ট্রীটভিউ সার্ভিস চালু করে এবং তাদের তথ্য প্রকাশ পায় যে এই সার্ভিস শুধু ৩৬০ ডিগ্রীতে ছবি তোলার জন্য ব্যবহার করা হয় না তাছাড়াও গ্রাহকের হাজার হাজার তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে রাখে এবং তাদের ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের তথ্যও জমা রাখে । মানুষের মাঝে বিতর্ক শুরু হয়ে গেলে যে এই প্রযুক্তি শুধু ইন্টারনেটকেই বরং পার্থিব বিশ্বকে একত্রিত করবে । ২০১১ সালে বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনার উদীয়মান প্রযুক্তির একটি হাইপ সাইকেল আবিস্কার করে যেখানে তারা আইওটিকে অন্তর্ভুক্ত করে। তার পরের বছর ২০১২ সালে ইউরোপের ব্রহত্তম ইন্টারনেট সম্মেলনে লিওয়েব এর থিম ছিল আইওটি । যার সাথে সাথে ফোর্বস, ফাস্ট কোম্পানি এবং ওয়ার্ড এর মত জনপ্রিয় প্রযুক্তিকেন্দিক ম্যাগাজিনগুলো আইওটিকে তাদের শব্দভাণ্ডারে যুক্ত করে । ২০১৩ সালের অক্টোবরে আইডিসি একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে যাতে দেখা যায় ২০২০ সাল নাগাদ ৮.৯ ট্রিলিয়ন ডলারের বাজার হবে আইওটি কেন্দ্রিক।
বর্তমান সময়ের কয়েকটি আইওটি প্রজেক্টের সংক্ষিপ্ত ধারণা
আইওটি আবহাওয়া রিপোর্ট এটি একটি সংযুক্ত মাইক্রোকন্ট্রোলার মাধ্যমে বাহিরের আবহাওয়া থেকে তথ্য সংগ্রহ করে এবং তা প্রসেস করে । নির্দিষ্ট একটি মান আগে থেকেই দেয়া থাকে যখন ওই মান অতিক্রম করে তখন ব্যবহারকারীকে সতর্ক করে দেয় ।
আইওটি বেজড স্বাস্থ্য পরীক্ষা এর মাধ্যমে শরীরের রক্তচাপ, চিনির স্তর, হৃদস্পন্দন পরিমাপ করে তা সফটওয়ারের মাধ্যমে প্রক্রিয়া করে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থাপত্র প্রদান করে ।
আইওটি বেজড ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম রাস্তায় ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার কাজে এই সিস্টেম অনেক কার্যকর । উন্নত বিশ্বে এই ব্যবস্থা ব্যবহার করা হয়। রাস্তায় ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করার জন্য সেন্সর বা ক্যামেরা লাগানো থাকে । ক্যামেরা থেকে প্রাপ্ত উপাত্ত প্রক্রিয়া করে কোন সিগন্যাল ছাড়তে হবে তা লাইটের মাধ্যমে বলে দেয় । আবার যদি রোগী বহনকারী গাড়ি হয় তখন এমারজেন্সি ওই রাস্তার সিগন্যাল ছেড়ে দেয় ।
সত্যিকার অর্থে বর্তমান সময়ের আইওটির ব্যবহার সম্পর্কে লেখে শেষ করা যাবে না । কারন বর্তমান সময়ে এর ব্যবহার ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে । আমাদের জীবনের জটিল অনেক কাজকে সহজভাবে করার জন্য আইওটির বিকল্প নেই । আমাদের চলাফেরা থেকে শুরু করে জীবনযাত্রার প্রতিটি ধাপে আজকে আইওটি ব্যবহার করে আসছি । চিকিৎসা, ব্যবসা বাণিজ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা, উৎপাদন ব্যবস্থাপনা, বিপণন, শিক্ষা, সামরিক ও গবেষণার কাজে, কৃষিতে আইওটি ব্যবহার হয়ে আসছে এবং তা দিন দিন আর বৃদ্ধি পাচ্ছে ।
IOT-Internet of things
For Details about IOT ...
About IOT
IOT-Internet of things IOT-Internet of things IOT-Internet of things IOT-Internet of things IOT-Internet of things

Add a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।